বিশেষ যত্ন

সংশোধনী ক্লাস

যদি কোনো শিক্ষার্থী বাড়ির পাঠ শিখে না আসে অথবা HW / Assignment করতে ব্যর্থ হয়, তাহলে তাকে ছুটির পরে সংশোধনী ক্লাসে উপস্থিত থেকে তা সম্পন্ন করতে হয়। অভিভাবকগণের অবগতির জন্য ডায়েরিতে ক্লাসের সময়সীমা উল্লেখ থাকে, যাতে অভিভাবকগণ সহজেই বুঝতে পারেন যে, শিক্ষার্থী কলেজ ছুটির পর কতক্ষণ সংশোধনী ক্লাসে উপস্থিত ছিল।

অতিরিক্ত ক্লাস

সকল শিক্ষার্থীর ধারণক্ষমতা একই রকম নয়। তাই যেসব শিক্ষার্থী ক্লাসের পড়া যথাযথভাবে বুঝতে না পারে তাদের জন্য অতিরিক্ত ক্লাস এর ব্যবস্থা রয়েছে। এর মাধ্যমে নির্ধারিত পাঠ সম্পর্কে তাদের অস্পষ্টতা জেনে সেসব বিষয়ের খুঁটিনাটি অংশ আলোচনা করা হয়। যার ফলে ক্লাসে পিছিয়ে পড়া শিক্ষার্থীরাও ফলাফল ভালো করতে পারে।

গাইড শিক্ষক

কোমলমতি শিক্ষার্থীদের সার্বিক তত্ত্বাবধানের জন্য রাজধানী আইডিয়াল কলেজে শিক্ষাবর্ষের শুরুতেই প্রত্যেক শিক্ষকের অধীনে নির্দিষ্ট সংখ্যক শিক্ষার্থীর দায়িত্ব অর্পিত হয়। দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক প্রতিমাসে শিক্ষার্থীর সাথে গাইড কাউন্সিলের সভায় মিলিত হয়ে তাদের পড়ালেখার খোজ-খবর নেন। গাইড শিক্ষক শিক্ষিকার উপস্থিতি, লেখাপড়ার অগ্রগতি পর্যবেক্ষণ এবং অভ্যন্তরীণ পরীক্ষার ফলাফল মূল্যায়ন, পরামর্শ প্রদান ও তদানুযায়ী কার্যকর ব্যাবস্থা গ্রহণ করেন। গাইড শিক্ষকের সুপারিশ ছাড়া অগ্রিম ছুটি মঞ্জর করা হয় না। ক্লাসে বা পরীক্ষায় অনুপস্থিতি, অকৃতকার্যতা, অসুস্থতা কিংবা শৃংখলা পরিপন্থি কার্যকলাপে সংশ্লিষ্টতা প্রভৃতি বিষয় গাইড শিক্ষক যথাসময়ে অবিভাবককে যথা সময়ে টেলিফোনে অবহিত করেন। প্রয়োজন অনুযায়ী একাধিকবার শিক্ষার্থীর বাসায় গিয়ে অভিভাবকের সাথে শিক্ষার্থীর পড়ালেখার অগ্রগতি নিয়ে আলোচনাপূর্বক প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। যা শিক্ষার্থীর ভালো ফলাফলে সহায়তা করে।